মেইন ম্যেনু

৫০ হাজার টাকার জন্য মাকে হত্যা!

বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরের ধাপহাট এলাকার সরিষার ক্ষেত থেকে রোকেয়া বেওয়া ওরফে দুলো (৬৮) নামের এক মহিলার লাশ উদ্ধার করার ঘটনার রহস্য উদঘাটন হয়েছে। মাকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে তার পুত্র।

জানা গেছে, মা রোকেয়া বেওয়া দুলো হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে তার বড় ছেলে ইউনুছ আলীকে নিজ বাড়ি থেকে রবিবার পুলিশ আটক করে। পরে তাকে বগুড়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লা আল মামুন এর আদালতে হাজির করলে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

ইউনুছ আলী আদালতে জানায়, সে ও তার অন্য ৩ জন সহযোগী নিয়ে তার মায়ের কাছে রক্ষিত ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ সরিষার ক্ষেতে ফেলে রাখে। এ ঘটনায় গত ১৮ জানুয়ারি নিহত রোকেয়া বেওয়া দুলোর ছোট ছেলে ইয়াকুব বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

দুপচাঁচিয়া থানার ওসি নজরুল ইসলাম আদালতে ইউনুছের জবানবন্দির কথা নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ১৮ জানুয়ারি দুপচাঁচিয়া সদরের নিমতলা নামক স্থান থেকে বৃদ্ধা দুলোর লাশ উদ্ধার করে দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই