মেইন ম্যেনু

৫৬ প্রাথমিক শিক্ষক টাইমস্কেল পাচ্ছেন না, অফিসারদের অবহেলার অভিযোগ

অফিসারদের অবহেলায় মতিঝিল থানা এলাকার ৫৬ জন প্রাথমিক শিক্ষকরা টাইম স্কেলবঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। টাইমস্কেল সময়মতো না পাওয়ার নতুন স্কেল পাওয়া থেকেও বঞ্চিত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।

ভুক্তভোগীরা জানান, এ সংক্রান্ত একটি সভা গত বছরের জুন মাসে অনুষ্ঠিত হলেও মতিঝিলের শিক্ষকদের বেতন নির্ধারিত স্কেলের চেয়ে একধাপ নীচে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, সাবেক থানা শিক্ষা অফিসার খালেদা আক্তারের ভুলের কারনে ঢাকা জেলা শিক্ষা অফিসে একধাপ নীচের স্কেলের বেতনের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল।

খালেদার পাঠানো প্রস্তাবটি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও জেলা প্রশাসকের অফিস যাচাই-বাছাই না করেই নীচের ধাপে বেতন অনুমোদন দেওয়ায় জটিলতা তৈরি হয়। পরবর্তীতে গত বছরের নভেম্বর মাসে সংশোধন করে পুণরায় প্রস্তাব পাঠানো হলেও গত ২৮ জানুয়ারির সভায়ও জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বাধীন কমিটি তা অনুমোদন করেনি।

জানা যায়, টাইমস্কেল অনুমোদনের দায়িত্ব পালন করেন জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বাধীন কমিটি এবং জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ওই কমিটির সদস্য-সচিব।

জানতে চাইলে মতিঝিল থানা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার খুরশীদ আরা বলেন, তিনি সংশোধিত প্রস্তাব পাঠিয়েছেন কিন্তু অনুমোদন না পাওয়ায় শিক্ষকরা বঞ্চিত হচ্ছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শাহীন আরা বুধবার বলেন, পরবর্তী সভায় এ সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

ভুক্তভোগী মতিঝিল মুসলিম আইডিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহীন শাহরিয়া বলেন, কর্মকর্তাদের গাফিলতির কারণে আমরা সময় মতো টাইম স্কেল থেকে বঞ্চিত হচ্ছি।

প্রাথমিক শিক্ষক সুরক্ষা ফোরামের আহবায়ক মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, শিক্ষকদের হয়রানি না করে অবিলম্বে টাইম স্কেল প্রদানের দাবি জানিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই