মেইন ম্যেনু

‘৫ জানুয়ারি ঘিরে নাশকতার পরিকল্পনা ছিল জামায়াতের’

নির্বাচনের বছরপূর্তি ও ৬ জানুয়ারি মানবতাবিরোধী অপরাধী মতিউর রহমান নিজামীর চূড়ান্ত রায়কে ঘিরে নাশকতার পরিকল্পনা ছিল জামায়াতের। শনিবার রাজধানীর রামপুরা বনশ্রী থেকে কোটি টাকাসহ গ্রেফতার হওয়া দলটির পাঁচ নেতা-কর্মী প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ কথা স্বীকার করেছেন।ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

শনিবার বিকেলে বনশ্রীর বি ব্লকের ৬ নম্বর রোডের ১৭ নম্বর বাড়ি থেকে জামায়াতের এই পাঁচ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে নগদ ১ কোটি ৪৭ হাজার ৫০০ টাকা ও কিছু জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়।

ডিএমপির উপকমিশনার (মিডিয়া) মো. মারুফ হোসেন সরদারের স্বাক্ষরযুক্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আসামিরা ৫ জানুয়ারিকে সামনে রেখে এবং যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর আপিল রায়কে কেন্দ্র করে সারা দেশে ব্যাপক নাশকতা ও নৈরাজ্য সৃষ্টির লক্ষ্যে এই টাকা তাদের কর্মীদের মধ্যে বিলি করার জন্য সংগ্রহ করেছিল।’

গ্রেফতার হওয়া জামায়াতের পাঁচ নেতা-কর্মী হলেন- মো. আমিনুর রহমান (৫৬), মো. গিয়াস উদ্দিন (৫৫), শাহাদাতুর রহমান ওরফে সোহেল (৪৩), ওসমান গনি (৪০) ও আবুল হাশেম (৩২)। গিয়াস উদ্দিন জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান হিসাবরক্ষক ও রুকন, মো. আমিনুর রহমান কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সহকারী হিসাবরক্ষক ও রুকন এবং আবুল হাশেম জামায়াতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের পিয়ন।






মন্তব্য চালু নেই