মেইন ম্যেনু

৬০ শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থমামলা করবে ঢাবি!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন মেয়াদে শিক্ষাছুটি নিয়ে বিদেশ গেছেন ৬০জন শিক্ষক। কিন্তু পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান না করায় অনেককে চাকুরিচ্যূত করা হয়েছে। আবার অনেকেই পদত্যাগ করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যাওয়ার প্রায় ৯ থেকে ১০ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও তারা কোনো যোগাযোগ করছেন না। তাদের বিরুদ্ধে একাধিকবার নোটিশ জারি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, বিভিন্ন মেয়াদে তারা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছুটি নিয়ে উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে বিদেশ গেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতন ভাতা ভোগ করার পর অনেকে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছেন। ফলে তাদের চাকুরিচ্যূত করা হয়েছে। কেউ কেউ পদত্যাগ করেছেন।

তিনি বলেন, বেতন ভাতা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা নিয়েছেন তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের পাওনা টাকা ফেরত দিতে তাদের একাধিকবার চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বারবার তাগাদা দেওয়া সত্ত্বেও তারা তা পরিশোধ করেন নি।

বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক ড. নূর-ই-ইসলাম সেলু জানান, ৬০জন শিক্ষকের কাছে মোট পাওনা রয়েছে চার কোটি ৩৮ লাখ ৬৬ হাজার ৯৪৭ দশমিক ৫০ টাকা। এরইমধ্যে সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের পাওনা সুদসহ অনতিবিলম্বে পরিশোধ করতে তাদের আবারো চিঠি দেওয়া হয়েছে এবং উক্ত টাকা পরিশোধ না করা পর্যন্ত সুদের পরিমাণ বাড়তে থাকবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, এসব শিক্ষককে অনতিবিলম্বে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা দেখব স্বল্প সময়ের মধ্যে তারা যোগাযোগ করেন কি না। যদি তারা যোগাযোগ না করেন এবং বকেয়া অর্থ পরিশোধ না করেন তাহলে খুব শিগগিরই তাদের বিরুদ্ধে অর্থমামলা করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ দফতর থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে শিক্ষকদের তালিকা ও পাওনা টাকার পরিমাণ হলো-
১. মিসেস শায়লা হামিদ, প্রাক্তন অধ্যাপক, ইংরেজি বিভাগ। পাওনা রয়েছে পাঁচ লাখ ১৫ হাজার ৪২১ দশমিক ৬০ টাকা।
২. মিসেস ফায়েজা সুলতানা, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, ইংরেজি বিভাগ। পাওনা রয়েছে চার লাখ ৮১হাজার ৫২৮ দশমিক ৩৭ টাকা।
৩. সুধীর শ্যমূয়েল চৌধুরী, প্রাক্তন প্রভাষক, ইংরেজি বিভাগ। পাওনা রয়েছে এক লাখ ৪৩ হাজার ৮৯৮ দশমিক ৪৯
৪. মো. মাইনুল হোসেন ভূইয়া, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, রসায়ন বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই লাখ ৭২ হাজার ৭৮৭ দশমিক ২৫ টাকা।
৫. মো. কামরুজ্জামান, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, রসায়ন বিভাগ। পাওনা রয়েছে তিন লাখ ৪৮ হাজার ৭৩০ দশমিক ২৯ টাকা।
৬. মিসেস লুনা নাসরীন রহমান, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, রসায়ন বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই ১৬ হাজার ৫২৩ টাকা।
৭. মো. জসিম উদ্দিন, প্রাক্তন প্রভাষক, রসায়ন বিভাগ। পাওনা রয়েছেদুই লাখ ৪৩ হাজার ৬১০দশমিক ৯২ টাকা।
৮. ড. মো. নাজমুল হুদা, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, প্রাণরসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই লাখ ২০ হাজার ১০৬ দশমিক ২০ টাকা।
৯. ড. মরিয়ম নাসরীন, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, প্রাণরসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে তিন হাজার ৪৪ হাজার ১৭১ দশমিক ২৬ টাকা।
১০. ড. মোহাম্মদ আরিফ, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, প্রাণরসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগ।পাওনা রয়েছে ছয় লাখ ৩২হাজার ৪০০টাকা।
১১. ড. আমিনুর রহমান, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ। পাওনা রয়েছে ৩৮ লাখ ১২হাজার ২৪৪ টাকা।
১২. ড. মো. আতাউর রহমান, প্রাক্তন অধ্যাপক, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে ছয় লাখ ৭৮ হাজার ১৩টাকা।
১৩. জাহিদ হাসান চৌধুরী, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই লাখ এক হাজার ৯৬৩টাকা।
১৪. এ.টি.এম. আব্দুল্লাহেল শাফী, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগ। পাওনা রয়েছে চার লাখ ১৮হাজার ৮১৯ টাকা।
১৫. মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন, প্রাক্তন প্রভাষক, ফিন্যান্স বিভাগ।পাওনা রয়েছে ছয় ৫৫ হাজার ৫১৭ টাকা।
১৬. ড. মো. সাইফুল ইসলাম, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ।পাওনা রয়েছে ছয় লাখ ৫২ হাজার ৭৭০ টাকা।
১৭. মো. আশরাফুজ্জামান, প্রাক্তন প্রভাষক, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই লাখ ১৯ হাজার ৩০৪ দশমিক ৯৬ টাকা।
১৮. ড. এ.কে.এম. জিয়াউর রহমান, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ।পাওনা রয়েছে চার লাখ ২০ হাজার ৩০৩ টাকা।
১৯. ড. নাসিমুল নোমান, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে আট লাখ ১৫ হাজার ৬৬৭ টাকা।
২০. মো. এনামুল করিম, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে ছয় লাখ ৩৫ হাজার ২১৪ টাকা।
২১. ড. মাহমুদ হোসেন, প্রাক্তন প্রভাষক, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ । পাওনা রয়েছে তিন লাখ ৭১ হাজার ৮৬০ দশমিক ০৫ টাকা।
২২. ড. জামিল ইউসুফ খান, প্রাক্তন প্রভাষক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ । পাওনা রয়েছে ৪১ হাজার ৭৯৩ টাকা।
২৩. সেকেন্দার চৌধুরী, প্রাক্তন প্রভাষক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১৯ হাজার ১১০ টাকা।
২৪. আদনান সিরাজ লস্কর, প্রাক্তন প্রভাষক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে এক লাখ ৫৪ হাজার ৩২০ দশমিক ৭৭ টাকা।
২৫. শেখ মোহাম্মদ আলী, প্রাক্তন প্রভাষক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে ৩০ লাখ ৪৪ হাজার ১৮২ দশমিক ৯০ টাকা।
২৬. আনিকা আজিজ, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। দুই লাখ ৫৯ হাজার ৭৬০ টাকা।
২৭. মো. বজলুর রশীদ, প্রাক্তন প্রভাষক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই লাখ ৩০ হাজার ৯২২ দশমিক ৪১ টাকা।
২৮. মো. জহিরুল হক, প্রাক্তন প্রভাষক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে দুই লাখ ৪৭ হাজার ২৯৩ দশমিক ৭৮ টাকা।
২৯. ড. সাজ্জাদ হায়দার, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে চার লাখ ২৬ হাজার ৬৮ দশমিক ৮০ টাকা।
৩০. জাহিদুল কাইয়ুম, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট।পাওনা রয়েছে পাঁচ লাখ ৫১ হাজার ৩৭০ দশমিক ২০ টাকা।
৩১. ড. নাসরিন ইসলাম খান, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ। পাওনা রয়েছে আট লাখ ৯৩হাজার ৯১ টাকা।
৩২. মন্ময় জাফর, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, ইংরেজি বিভাগ। পাওনা রয়েছে নয় লাখ ৩৪ হাজার ২৬৮ টাকা।
৩৩. মো. মাহমুদ বিন সাঈদ, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, আরবী বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১০ লাখ ২২ হাজার ৮৮৪ টাকা।
৩৪. ড. মো. হানিফ উদ্দিন, প্রাক্তন অধ্যাপক, তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগ।পাওনা রয়েছে ১০ লাখ ৯৫ হাজার ৮২ টাকা।
৩৫. আরিফুর রহমান, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১৪ হাজার ২১ হাজার ১০৩ টাকা।
৩৬. ড. মোহাম্মদ নুরুল হক, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১১ লাখ ৩৮ হাজার ৩৭০ টাকা।
৩৭. মোহাম্মদ মুসফিক উদ্দীন, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, ফিন্যান্স বিভাগ। পাওনা রয়েছে চার লাখ ৫০ হাজার ৭৬৪ টাকা।
৩৮. অনুপ চৌধুরী, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ। পাওনা রয়েছে এক লাখ ২৬ হাজার ৪৮৬ টাকা।
৩৯. সামিনা এম সাইফুদ্দীন, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, ব্যবস্থাপনা বিভাগ। পাওনা রয়েছে সাত লাখ ২৭ হাজার ৫২৫ টাকা।
৪০. ড. ফারহানা আজিম, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, নৃবিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে নয় লাখ ৫৮ হাজার ৩৯৬ টাকা।
৪১. ড. মনিরুজ্জমান ভূঞা, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট। পাওনা রয়েছে সাত লাখ ১৯ হাজার ৪৬০ দশমিক ২০টাকা।
৪২. মো. আলমগীর রহমান, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১২ লাখ ৪৮ হাজার ৮২ টাকা।
৪৩. মোহাম্মদ এহসান, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, লোকপ্রশাসন বিভাগ। পাওনা রয়েছে নয় লাখ চার হাজার ৬৮৯ টাকা।
৪৪. তানিয়া শারমিন, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, নৃবিজ্ঞান বিভাগ। ১০লাখ ১০ হাজার ৯৪১টাকা।
৪৫. শাহেদ আনোয়ার, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে আট লাখ ৩০ হাজার ২১২ টাকা।
৪৬. ড. শেখ মো. রিয়াজুল ইসলাম, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ। পাওনা রয়েছে ৭৮ হাজার ৪৫১ টাকা।
৪৭. মোস্তাইম বিল্লাহা, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১২ লাখ ৪৬ হাজার ৮৩ টাকা।
৪৮. মো. আবুজার কবির, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে সাত লাখ ১৪ হাজার ৬৯৩ দশীমক ৯৪ টাকা।
৪৯. মো. আমিনুল ইসলাম মল্লিক, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১৫ লাখ ৮৪ হাজার ২৮৭ টাকা।
৫০. মো. নজরুল ইসলাম, প্রাক্তন লেকচারার, ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগ। পাওনা রয়েছে চার লাখ ২২ হাজার ১৫১ দশমিক ৯০ টাকা।
৫১. কাজী আমিনুর রহমান, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, গণিত বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১০ লাখ ১৭২ টাকা।
৫২. জিয়া সাদিক, প্রাক্তন লেকচারার, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট। পাওনা রয়েছে আট লাখ ৩৪ হাজার ৪২৭ দশমিক ২১ টাকা।
৫৩. ড. হোসনে আরা বেগম, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট। পাওনা রয়েছে ১৫ লাখ ২০ হাজার ৩১০ টাকা।
৫৪. শেখ মোহাম্মদ শহিদ উদ্দীন ইস্কান্দার, প্রাক্তন প্রভাষক, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট। পাওনা রয়েছে আট লাখ ৯৭ হাজার ৪৫৭ টাকা।
৫৫. খন্দকার মো. ইসতিয়াক, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, অর্থনীতি বিভাগ।পাওনা রয়েছে ১৩ লাখ দুই হাজার ৯৮৫ টাকা।
৫৬. তানজিম আফরোজ, প্রাক্তন প্রভাষক, আইন বিভাগ। পাওনা রয়েছে ১০ লাখ ২৩ হাজার ৩৫২ টাকা।
৫৭. মু. গোলাম মোর্শেদ, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট। পাওনা রয়েছে সাত লাখ ৯৭ হাজার ২৩০ টাকা।
৫৮. ড. মো. হেদায়েত উল্লাহ চৌধুরী, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগ।পাওনা রয়েছে ৪৬ হাজার ১৫ টাকা।
৫৯. ড. মাহমুদা শায়লা বানু, প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট। পাওনা রয়েছে আট লাখ ৯৫ হাজার ৭৮৩ টাকা।
৬০. মুহাম্মদ ওমর ফারুক, প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ। পাওনা রয়েছে সাত লাখ ৪৬ হাজার ৫২২ টাকা। রাইজিংবিডি






মন্তব্য চালু নেই