মেইন ম্যেনু

৯২ দিন অফিসে আরাম-আয়েশ করেছেন খালেদা

বিএনপি-জামায়াত উন্নয়ন ও গণতন্ত্র সহ্য করতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সরকারের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে ভাষণে তিনি এ মন্তব্য করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘একটি গণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় আসার একবছর পূর্তিতে খালেদা জিয়া আন্দোলন শুরু করে। তার আদালতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে জামায়ত-বিএনপি অবরোধ শুরু করে। ৬৮ জন নেতাকর্মী নিয়ে টানা ৯২ দিন আরাম-আয়েশে অফিসে দিন কাটান খালেদা জিয়া। পরে নাকে খত দিয়ে বাইরে বেরিয়ে যান।’

জনগণকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘সন্ত্রাস বোমাবাজি উপেক্ষা করে সেদিন আপনারা গণতন্ত্রকে বিজয়ী করেছিলেন। কিন্তু গণতন্ত্র ও উন্নয়ন বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্ব সহ্য করতে পারে না। মানুষ শান্তিতে থাকবে, হাসি মুখে জীবনযাপন করবে তা ওদের সহ্য হয় না।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামাতের হত্যাযজ্ঞর সঙ্গে জড়িত ছিল যারা তাদের বিচার করা হচ্ছে। অপরাধীদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না। যারা জনগণের ক্ষতি করছে তাদের বিচার অবশ্যই হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সারাবিশ্বে বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের রোলমডেল, জাতিসংঘসহ বিভিন্ন সংস্থা যখন বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, সুশাসন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন, এমডিজির লক্ষ্যসমূহ অর্জন, জলবায়ুর প্রতিকূল প্রভাব মোকাবেলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে স্বীকৃতি ও পুরস্কারে ভূষিত করছে, তখনই বিএনপি-জামায়াত আবারো দেশে সন্ত্রাস, সহিংসতা শুরু করে।’

তিনি বলেন, ‘এই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড জনসমর্থন পায়নি। ব্যর্থতার বোঝা নিয়ে আদালতে হাজিরার মাধ্যমে নাকে খত দিয়ে বাড়ি ফিরে যান তিনি। আমি জনগণকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাই বিএনপি-জামায়াতের অনৈতিক অবরোধ কর্মসূচির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদ করায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ আর্থ-সামাজিক খাতে অভুতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে। ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন শেষ পর্যায়ে। সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পানা হাতে নিয়েছি। অচিরেই ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করবো। শিশু মৃত্যুর হার কমে গেছে। নারী ক্ষময়তানে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল হয়েছে।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই