মেইন ম্যেনু

“৯৫% মুসলমানের দেশে রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম ছাড়া অন্য কিছু তৌহিদী জনতা মেনে নিবে না”

রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এদেশের শান্তিপ্রিয় ঈমানদার মুসলমানদের ঈমান রক্ষার আন্দোলন। মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশরক্ষা ও দেশের স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনার জন্য এ দেশের মানুষ যেভাবে অকাতরে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল, ঠিক রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম রক্ষায়ও তৌহিদী জনতা তাজা খুন ঢেলে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

দেশের ৯৫% ভাগ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভ’তিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে রাষ্ট্র ধর্ম ইসলামকে সংবিধানে বহাল রাখতে হবে। ৯৫% মুসলমানদের ধর্মীয় আবেগ, অধিকার ও মূল্যবোধের বিপক্ষে কোনো সিদ্ধান্ত নিলে তৌহিদী জনতা তা প্রতিহত করার জন্য যা যা করা দরকার সবকিছুই করতে প্রস্তুত রয়েছে।

যে দেশের প্রধান মন্ত্রী নামাজী, মন্ত্রী এমপিসহ প্রশাসনসহ সংখ্যাগরিষ্ট মানুষ ধার্মিক, যে দেশের মানুষ আজানের ধ্বনিতে ঘুমায়, আজানের আওয়াজে জাগ্রত হয়, সে দেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ছাড়া অন্য কিছু জনগণ মানে না, মানবে না, মানতে পারে না। সুতরাং ধর্মদ্রোহিদের পক্ষ থেকে করা তথাকথিত রিট খারিজ করে তৌহিদী জনতার অনুভুতির পক্ষে অবস্থান নিন। অন্যথায় আল্লাহর গজবে সবকিছু তছনছ হয়ে যাবে। এবং তৌহিদী জনতার উত্তাল তরঙ্গে সরকার ভেসে যাবে।

গতকাল বাদ জুমা সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্র ঘোষীত কর্মসূচীর অংশ হিসাবে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর সংগ্রামী আহবায়ক আল্লামা নূর হোছাইন কাসেমী বিক্ষোভ পূর্ব সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন: হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরী যুগ্ম আহবায়ক আল্লামা আবুল কালাম আযাদ, যুগ্ম আহবায়ক ও চেয়ারম্যান ইসলামী ঐক্যজোট এডভোকেট মাও. আব্দুর রাকীব, মহাসচিব খেলাফত মজলিস ড. আহমদ আব্দুল কাদের, যুগ্ম আহবায়ক হেফাজতে ইসলাম মাও. আব্দুর রব ইউসূফী, হাকীম আব্দুল করীম খান, সদস্য সচিব মাও. জুনায়েদ আল-হাবীব, যুগ্ম আহবায়ক মাও. ফজলুল করীম কাসেমী, মাও. শফীকুদ্দীন, মাও. বাহাউদ্দীন যাকারিয়া, মাও. মুজিবুর রহমান হামিদী, শেখ গোলাম আছগর, মাও. আহমদ আলী কাসেমী, মাও. মুফতি আযহারুল ইসলাম, মাও. মুফতি আব্দুস সাত্তার, মাও. আলী আকবর, মাও. শরীফুল্লাহ, মাও. আব্দুল কুদ্দুস, মাও. মুহা. ফয়সাল, মাও. মঞ্জুরুল ইসলাম, মাও. মুজিবুর রহমান, মাও. মুতিউর রহমান গাজীপুরী, মাও. ওয়ালীউল্লাহ আরমান, মাও. মুফতি ফখরুল ইসলাম, মুফতী নাছিরুদ্দন, মাও. হাবীবুল্লাহ ইসলামপুরী, মাও. বোরহানুদ্দীন প্রমূখ।






মন্তব্য চালু নেই