মেইন ম্যেনু

৯ দিনেই ভেঙে পড়তে পারে ইউরোপের সীমান্ত !

বর্তমানে যে হারে অভিবাসনপ্রত্যাশী মানুষ ইউরোপে যাচ্ছে, তা অব্যাহত থাকলে আগামী নয় দিনের মধ্যেই ইউরোপের সীমান্ত ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে। তাই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের এই হার দ্রুত কমাতে হবে। অভিবাসনবিষয়ক সংগঠন ‘ইউরোপীয় কমিশন ফর মাইগ্রেশনে’র প্রধান দিমিত্রিস আভ্রামপলাস এই আহ্বান জানিয়েছেন।

সম্প্রতি বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে এক সভায় দিমিত্রিস আভ্রামপলাস বলেন, ইউরোপের ঐক্য ও মানুষের জীবন হুমকির মুখে। বড় পর্যায়ে মানবিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। এই বিপর্যয় আরো খারাপ মোড় নিয়েছে, কারণ প্রতিনিয়ত ইউরোপের দেশগুলো অভিবাসী গ্রহণের সংখ্যা কমিয়ে দিচ্ছে।

ব্রিটেনের সাময়িকী ডেইলি স্টার জানিয়েছে, অভিবাসনপ্রত্যাশীদের স্রোতের তোড়ে গ্রিসে বড় ধরনের স্থবিরতা দেখা গেছে। মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা থেকে ইউরোপে অভিবাসনপ্রত্যাশীরা প্রথমে গ্রিসে পৌঁছায়।

গ্রিসের পক্ষ থেকে হুমকি দেওয়া হয়েছে, অভিবাসন সমস্যা সমাধানে কোনো ইউরোপীয় দেশ এগিয়ে না এলে তারা ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) ভবিষ্যতের কোনো চুক্তি মেনে নেবে না।

জানা গেছে, ইইউ নেতারা আগামী ৭ মার্চ আবার আলোচনায় বসবেন। অভিবাসন সমস্যার কোনো কার্যকর সমাধান বের করাই হবে এ আলোচনার লক্ষ্য।

এ পর্যায়ে জঙ্গলে আশ্রয় নেওয়া ব্রিটেনে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সরিয়ে নিতে দুদিন সময় দেওয়া হয়েছে। এর পর ওই অবৈধ আশ্রয়শিবির ভেঙে দেওয়া হবে। ফ্রান্সের একটি আদালত ওই অবৈধভাবে গড়ে তোলা আশ্রয়শিবির ভেঙে দেওয়ার আবেদনে সারা দিয়েছেন। এরই মধ্যে ওই আশ্রয় ছাড়তে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সহায়তা করছেন সমাজকর্মীরা। তবে অবৈধ আশ্রয় ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়ার বাসগুলো অধিকাংশ সময়ই খালি থাকছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই