মেইন ম্যেনু

ফাঁসির প্রস্তুতি চলছে, কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রাণভিক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি শুরু করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। আইনি সব প্রক্রিয়া প্রায় শেষ তাই প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না এবিষয়ে শিগগির নিজামীর কাছে সিদ্ধান্ত চাওয়া হবে বলে কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার নেছারুল আলম।

কারাগারের একটি সূত্র জানায়, ‘অন্যান্য আসামীদের মত নিজামীকে সুযোগ দেওয়া হবে না। তাকে অতি শিগগির ফাঁসি দেওয়া হবে। তাই কারা কতৃপক্ষ যথাসম্ভব সব কার্যক্রমই দ্রুতই সেরে ফেলছে। নির্দেশনা আসার পরই তাকে ফাঁসিতে ঝোলানো হবে।’

ধারণা করা হচ্ছে, এজন্যই মঙ্গলবার সকাল থেকেই তারা দফায় দফায় বৈঠক করেছেন কারা কতৃপক্ষ। এরই মধ্যে চার জল্লাদের ফাঁসি কার্যকরের মহড়াও সম্পন্ন হয়েছে।

এ ব্যাপারে দুপুর ১২টায় প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার নেছারুল আলম জানান, আইনি সব প্রক্রিয়া প্রায় শেষ হয়ে গেছে। তবে নিজামী প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না, তা জানা হয়নি। দুপুরের পরই তার কাছে প্রাণভিক্ষা চাওয়ার সরকারি ফরম দেওয়া হবে। আর না চাইলে ফাঁসি কার্যকর করা হবে।

এদিকে, আজ সকালে নিজামী সকালের নাস্তা শেষে পরিবারের সঙ্গে শেষ সাক্ষাতের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন কারা কর্তৃপক্ষের কাছে। নিজামীকে এ সুযোগ দেওয়া যায় কি না, তা নিয়ে দুপুরে বৈঠক করেছেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার কর্তৃপক্ষ করেছেন।

ফাঁসি কীভাবে হবে তারই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার সকালের দিকে অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল মো. ইকবাল, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির, জেলার নেছারুল আলমসহ বেশ কয়েকজন কারা কর্মকর্তা একাধিকবার বৈঠক করেছেন। ফাঁসির মঞ্চসহ আশপাশের স্থান পরিদর্শন করেন তারা।

গত ৫ মে মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর সাজা পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ।






মন্তব্য চালু নেই